মৌর্যের বংশের প্রতিষ্ঠাতা, শেষ রাজা, শ্রেষ্ঠ রাজা কে ছিলেন, প্রিয়দর্শী কাকে বলা হয় || Chandra Gupta Mourya

মৌর্যের বংশের প্রতিষ্ঠাতা, শেষ রাজা, শ্রেষ্ঠ রাজা কে ছিলেন, প্রিয়দর্শী কাকে বলা হয় || Chandra Gupta Mourya

Chandra Gupta Mourya

• নন্দ বংশের পর মৌর্য বংশের প্রতিষ্ঠা করেন চন্দ্রগুপ্ত মৌর্য। তিনি ছিলেন ভারতের প্রথম ঐতিহাসিক সম্রাট।

• চন্দ্রগুপ্তের রাজত্বকালে গ্ৰীকরাজ সেলুকাসের দূত হিসেবে মেগাস্থিনিস ভারতে এসেছিলেন। সেই সময় চন্দ্রগুপ্ত মৌর্যের রাজদরবার ছিল পাটলিপুত্র নামক স্থানে।

• গ্রিক পর্যটক মেগাস্থিনিস লেখা ভারত সংক্রান্ত বইটির নাম হল ইন্ডিকা।

• চন্দ্রগুপ্ত মৌর্যকে গ্রীকরা ‘স্যান্ড্রাকোট্টাস বা মুক্তিদাতা’ বলে অভিহিত করত।

• চন্দ্রগুপ্ত মৌর্যের রাজ উপদেষ্টা বা প্রধানমন্ত্রী ছিলেন চাণক্য। রাষ্ট্রবিজ্ঞানে তার পান্ডিত্যের জন্য চাণক্যকে ‘ভারতের মেকিয়াভেলি’ বলা হয়।

• চন্দ্রগুপ্ত মৌর্যের মৃত্যুর পর তাঁর পুত্র বিন্দুসার মগধের সিংহাসনে বসেন। তিনি হলেন দ্বিতীয় মৌর্য সম্রাট।

• দ্বিতীয় মৌর্য সম্রাট বিন্দুসার ‘অমিত্রাঘাত’ উপাধি গ্রহণ করেছিলেন, যার অর্থ ‘শত্রু নিধন’।

• বিন্দুসারের মৃত্যুর পর মগধের সিংহাসনে বসেন ‘অশোক’। সম্রাট অশোক, ‘চন্ডাশোক’ নামে পরিচিত ছিলেন। এছাড়াও সম্রাট অশোক ‘দেবনামপ্রিয়’ নামেও পরিচিত ছিলেন।

• সম্রাট অশোক সিংহাসনে বসার পর “প্রিয়দর্শী” উপাধি গ্রহণ করেছিলেন। বৌদ্ধ ধর্মে ‘কনস্ট্যানটাইন’ বলা হত মৌর্য সম্রাট অশোক কে।

• মৌর্য বংশের শেষ রাজা ছিলেন ‘বৃহদ্রথ’ । পুষ্যমিত্র শুঙ্গ বৃহদ্রথকে হত্যা করে সিংহাসনে বসেন এবং মগধের শুঙ্গ বংশের প্রতিষ্ঠা করেন।

• মৌর্য যুগের পর শুরু হয়েছিল শুঙ্গ বংশ এবং শুঙ্গ বংশের আনুমানিক সময়কাল ধরা হয় (১৮৫-৭৩) পর্যন্ত। এই বংশের শেষ সম্রাট ছিলেন ‘দেবভূতি’।

 

প্রতিদিন এই ধরনের পোস্ট পেতে আমাদের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে ও টেলিগ্ৰাম চ্যানেলে যুক্ত হয়ে যান

 

আরও পড়ুন:- শিশুনাগ বংশ ও নন্দ বংশ 

 

 

Leave a comment